আজকের পত্রিকা

একক প্রার্থিতা নিশ্চিতের চিঠি দিচ্ছে আওয়ামী লীগ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একক প্রার্থী নিশ্চিত করতে চিঠি দেওয়া শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। গতকাল রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনে বর্তমান এমপি ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর হাতে চিঠি তুলে দিয়ে এই প্রক্রিয়া শুরু হয়। এ আসনে দলের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি এবার এ আসন থেকে নির্বাচন করছেন না। দলের হাতে দুই দিন সময় থাকলেও আজ ও আগামীকালের মধ্যেই চূড়ান্ত চিঠি দেওয়া হচ্ছে দল ও জোটের প্রার্থীদের। এরই মধ্যে দল ও জোটের প্রার্থীদের জন্য চিঠি প্রস্তুত করা হয়েছে।

গত ২৫ নভেম্বর থেকে বিভিন্ন আসনে দলের প্রার্থীদের মনোনয়নের চিঠি দেওয়া শুরু করে আওয়ামী লীগ। ২৬৭ আসনে দলীয় ২৭৯ জন প্রার্থীকে চিঠি দেওয়া হয়। এর মধ্যে যাচাই-বাছাই শেষে ২৭৮ জন বৈধ প্রার্থী হিসেবে টিকে যান। ১২টি আসনে একাধিক প্রার্থীকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। জোটের জন্য জাতীয় পার্টি, যুক্তফ্রন্ট এবং ১৪ দলকেও আসন ছাড় দেওয়া হয়। জাতীয় পার্টিকে ৪৪টি, ১৪ দলকে ১৫টি এবং যুক্তফ্রন্টকে ছয় থেকে সাতটি আসনে ছাড় দেওয়ার সম্ভাবনা আছে। দলীয় সূত্রমতে, ইতিমধ্যে বেশ কয়েকজনকে দলের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়াও জোট শরিকদের কাকে কতটি আসন ছাড় দেওয়া হচ্ছে, তা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। আজ থেকে চিঠি বিতরণ শুরু করা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গতকাল রাজধানীতে এক আলোচনায় বলেন, বৃহস্পতিবার থেকেই জোটের প্রার্থীদের হাতে চূড়ান্ত মনোনয়নের চিঠি তুলে দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আগামীকালের (শুক্রবার) মধ্যে ৩০০ নির্বাচনী আসনের প্রার্থীদের হাতে এই চিঠি পৌঁছে যাবে। তিনি বলেন, আমরা আমাদের দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ইতিমধ্যে দলের এবং জোটের মনোনয়ন প্রক্রিয়া শেষ করেছি। জানা গেছে, যেসব আসনে আওয়ামী লীগের দুজন করে প্রার্থী রাখা হয়েছে, সেখানে কাকে প্রার্থী করা হচ্ছে তা চূড়ান্ত করে জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে। নাটোর-১ আসনে প্রথমে আওয়ামী লীগের চিঠি পান শহিদুল ইসলাম বকুল। এরপর ওই আসনে সাবেক সেনা কর্মকর্তা কর্নেল (অব.) রমজান আলীকে নৌকার চিঠি দেওয়া হয়। এক আসনে দুজন প্রার্থী নিয়ে বিপাকে পড়ে স্থানীয় নেতা-কর্মীরা। গত বুধবার রাতে গণভবনে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে আসেন প্রথম চিঠি পাওয়া শহিদুল ইসলাম বকুল। এ সময় দলীয় সভানেত্রী তাকে জানিয়ে দেন এ আসনে চূড়ান্ত প্রার্থী কর্নেল (অব.) রমজান আলী। তার পক্ষে তাকে কাজ করতে নির্দেশ দেন দলীয় সভানেত্রী। টাঙ্গাইল-৫ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছিলেন বর্তমান এমপি ছানোয়ার হোসেন। মহাজোটের কারণে এবার তার কপাল পুড়ছে। বুধবার রাতে ছানোয়ার হোসেন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গণভবনে আসেন। এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী জাতীয় পার্টির পীরজাদা শফিউল্লাহ আল মনিরের পক্ষে কাজ করতে তিনি নির্দেশ দেন। গণভবনে উপস্থিত একাধিক সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

একইভাবে ঢাকা-৫ আসনে আওয়ামী লীগের চিঠি পেয়েছেন দুজন। তারা হলেন বর্তমান এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লা ও কাজী মনিরুল ইসলাম মনু। এ আসনে এবারও দলের মনোনয়ন পাচ্ছেন হাবিবুর রহমান মোল্লা। গতকাল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় পুত্রবধূ সুলতানা কামালের জ্যেষ্ঠ ভ্রাতা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ট্রাস্টের কোষাধ্যক্ষ এ এম রফিকের শাহাজাহানপুরের বাসায় শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, ঢাকা-৫ আসনে এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লা ও আরেক চিঠি পাওয়া মনিরুল ইসলাম মনু উপস্থিত ছিলেন। মনিরুল ইসলাম মনুকে হাবিবুর রহমানের পক্ষে কাজ করতে নির্দেশ দেন শেখ হাসিনা।

দল ও গণভবনের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, দলের যেসব আসনে একাধিক প্রার্থী রয়েছে, সেসব আসনে চূড়ান্ত চিঠি আজকে দেওয়া হবে। একইভাবে জোটের প্রার্থীদের যেসব আসনে ছাড় দেওয়া হচ্ছে, সেসব আসনগুলো জোট শরিকদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এসব প্রার্থীকেও নৌকা প্রতীক দিতে চিঠি দেওয়া হবে। আজ দলের ধানমন্ডির ও বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের কার্যালয় থেকে এই চিঠি দেওয়া হতে পারে।

ভি-ডি-ও-দেখুন:

0Shares